বান্দরবানে মগ পার্টি কর্তৃক জনসংহতি সমিতির এক সদস্যকে অপহরণের পর হত্যা

0
835
ছবি : অপহরণের পর হত্যার শিকার পুশৈথোয়াই মারমা

হিল ভয়েস, ১৩ ডিসেম্বর ২০২১, বান্দরবান: বান্দরবান সদর উপজেলাধীন চিমি ডুলুপাড়া থেকে সেনা ও আওয়ামীলীগ সমর্থিত মগ পার্টি সশস্ত্র সস্ত্রাসী কর্তৃক পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির এক সদস্যকে নিজ বাড়ি থেকে অপহরণের পর হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অপহরণের পর হত্যার শিকার ব্যক্তির নাম পুশৈথোয়াই মারমা (৪২) পীং- অংসা চিং মারমা, গ্রাম- ডুলুপাড়া, কুহালং ইউনিয়ন। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বান্দরবান জেলা কমিটির সদস্য এবং বান্দরবান সদর থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক।

জনসংহতি সমিতির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমার স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায় যে, গত ১২ ডিসেম্বর ২০২১ দিবাগত রাত ৮:৩০ ঘটিকায় বান্দরবান জেলার সদর উপজেলাধীন চিমি ডুলু পাড়া থেকে সেনা ও আওয়ামীলীগ সমর্থিত মগ পার্টি সশস্ত্র সস্ত্রাসী সদস্য কর্তৃক পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির বান্দরবান জেলা কমিটির সদস্য এবং বান্দরবান সদর থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক পুশৈথোয়াই মারমাকে (৪২) নিজ বাড়ি থেকে অপহরণ করে ডুলুপাড়ার অদূরে আমতলীপাড়ায় নিয়ে গিয়ে গুলি হত্যা করে চলে যায়।

উল্লেখ্য যে, পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করতে ও পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার উদ্দেশ্যে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় নেতৃত্ব কর্তৃক সশস্ত্র সংগঠন মগ পার্টি, জেএসএস (এমএন লারমা) সংস্কারপন্থী, ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক)সহ পার্বত্য চুক্তি বিরোধী ও মৌলবাদী জঙ্গীগোষ্ঠীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে খুন, অপহরণ, মুক্তিপণ আদায় ইত্যাদি সন্ত্রাসী তৎপরতা চালিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে এক অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়েছে।

তার মধ্যে মগ পার্টি সন্ত্রাসীদের রাজস্থলীর পোয়াইতু পাড়ায় সশস্ত্রভাবে মোতায়েন রেখে জনসংহতি সমিতির সদস্য ও চুক্তি সমর্থকসহ সাধারণ লোকের উপর অপহরণ, খুন, চাঁদাবাদিসহ সন্ত্রাস চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পুশৈথোয়াই মারমাকে  অপহরণ ও হত্যার ঘটনায়  পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে এবং ঘটনার সাথে জড়িত সশস্ত্র সন্ত্রাসী সংগঠন মগ পার্টির সদস্যদের গ্রেফতার এবং উক্ত সন্ত্রাসী সংগঠনের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে।