নান্যাচর সেতু হতে সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীদের কর্তৃক এক যুবক অপহৃত, পরে মুক্তিপণ দিয়ে মুক্তি

0
203

হিল ভয়েস, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন নান্যাচর (নানিয়ারচর) উপজেলার নান্যাচর সেতু থেকে সেনামদদপুষ্ট সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীরা শুদ্ধোধন চাকমা (৩৩), পীং-উলুঙ্গ্যা চাকমা নামে রাঙ্গামাটি শহর এলাকা থেকে বেড়াতে আসা এক যুবককে অপহরণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে মুক্তিপণের বিনিময়ে অপহরণকারীরা ওই যুবককে মুক্তি দিয়েছে বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগীদের সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ বিকাল আনুমানিক ৪:০০ টার দিকে রাঙ্গামাটি শহরের ভেদভেদি এলাকার বাসিন্দা শুদ্ধোধন চাকমা একই এলাকার সুইটি চাকমা (২৩) ও সোনালী চাকমা (২১) নামে দুই বান্ধবীকে নিয়ে নান্যাচর সেতু দেখতে যায়।

নান্যাচর সেতুর উপর বেড়ানোর এক পর্যায়ে রূপম দেওয়ান এর নেতৃত্বে কয়েকজন সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসী সেখানে এসে কথা আছে বলে শুদ্ধোধন চাকমাকে অজ্ঞাত স্থানে ডেকে নিয়ে যায়। দীর্ঘ ২ ঘন্টা পরও শুদ্ধোধন চাকমা ফিরে না আসায় তার সঙ্গী সুইটি চাকমা ও সোনালী চাকমা উদ্বিগ্ন হয়ে বারবার শুদ্ধোধন চাকমাকে ফোন করে। কিন্তু ফোন বন্ধ থাকে।

সন্ধ্যা ৬:৩০ টার দিকে রূপম দেওয়ান তার কয়েকজন সঙ্গী নিয়ে সেতুতে থাকা সুইটি চাকমা ও সোনালী চাকমার নিকট আসে এবং শুদ্ধোধন চাকমা তাদের হেফাজতে আছে বলে জানায়। এরপর রূপম দেওয়ান সুইটি চাকমা ও সোনালী চাকমাকে যেখানে শুদ্ধোধন চাকমাকে আটক রাখা হয়েছে সেখানে নিয়ে যায়। ইতোমধ্যে সন্ত্রাসীরা শুদ্ধোধন চাকমাকে মারধর করে জখম করে। এসময় সুইটি চাকমা ও সোনালী চাকমা কেন শুদ্ধোধন চাকমাকে নির্যাতন করা হয়েছে তা জিজ্ঞেস করে। জবাবে সন্ত্রাসীরা বলে যে, কোনো এক সময় রাঙ্গামাটিতে পিসিপি’র সম্মেলনে যোগদান করার অপরাধে শুদ্ধোধন চাকমা ধরা হয়েছে।

এর কিছু সময় পরেই সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীরা শুদ্ধোধন চাকমার মুক্তিপণ হিসেবে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। ঐদিন সারারাত সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীরা দুই তরুণীসহ শুদ্ধোধন চাকমাকে তাদের হেফাজতে আটক করে রাখে।

পরদিন ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ অনেক দরকষাকষির পর সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীরা ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে দুই তরুণীসহ শুদ্ধোধন চাকমাকে ছেড়ে দেয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here