রাঙ্গামাটিতে সেনা ও যৌথ বাহিনী কর্তৃক দুই জুম্ম আটক

0
416
ছবি : প্রতিকী

হিল ভয়েস, ৩০ মে ২০২৩, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা শহর এলাকা থেকে পৃথকভাবে সেনাবাহিনী ও যৌথ বাহিনী কর্তৃক দুই আদিবাসী জুম্মকে আটক করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে কী কারণে আটক করা হয়েছে তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল ২৯ মে ২০২৩ বিকাল আনুমানিক ৪ টার দিকে সেনাবাহিনীর একটি দল রাঙ্গামাটি শহরের বনরূপা সমতাঘাট এলাকা থেকে রেবতি চাকমা (৫৫), পীং-সুরেশ চাকমা নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে নিয়ে যায়। রেবত্যা চাকমার বাড়ি রাঙ্গামাটি সদর উপজেলার বন্দুকভাঙা ইউনিয়নের কুড়ামারা গ্রামে।

অপরদিকে, গত ২৭ মে ২০২৩ সকাল ৮ টার দিকে যৌথ বাহিনীর একটি দল রাঙ্গামাটি শহরের ভেদভেদি এলাকার নিজ বাড়ী থেকে সিদ্ধার্থ চাকমা (৬০), পীং-মৃত মধু সুধন চাকমা নামে অপর এক ব্যক্তিকে আটক করে বলে জানা গেছে। এইদিন বিকাল ২.৩০ টার দিকে যৌথ বাহিনী হাতকড়া পড়া অবস্থায় সিদ্ধার্থ চাকমাকে রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রত্যক্ষদর্শীর ধারণা, নির্যাতনের পর চিকিৎসার জন্য সিদ্ধার্থ চাকমাকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। অপর এক সূত্র জানায়, রিমান্ডে নেওয়ার আগে চেক-আপ করার জন্য সিদ্ধার্থ চাকমাকে হাসপাতালে নেয়া হয়।

তবে তাদের উভয়কে কী কারণে বা কোন অভিযোগের ভিত্তিতে আটক করা হয়েছে তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি। অপরদিকে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আটকের পর আইন অনুযায়ী উক্ত দুই ব্যক্তিকে আদালতে হাজির বা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানা যায়নি।

উল্লেখ্য যে, গত ২৪ মে ২০২৩ রাত আনুমানিক ৮ টায় ভেদভেদি এলাকার পার্শ্ববর্তী মোনঘর এলাকায় কে বা কারা প্রভাত চাকমা (৪৭) নামে এক ব্যক্তিকে খুন করে। উক্ত ঘটনার পর মৃত প্রভাত চাকমার স্ত্রী সিদ্ধার্থ চাকমা সহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন বলে জানা যায়। ধারণা করা হচ্ছে, ঐ মামলার কারণে সিদ্ধার্থ চাকমাকে আটক করা হয়েছে।