বিলাইছড়িতে সেনাবাহিনী কর্তৃক নিরীহ জুম্মকে হয়রানি এবং একজনের কাছ থেকে টাকা গ্রহণের অভিযোগ

0
465

হিল ভয়েস, ১৩ মে ২০২১, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নে সেনাবাহিনী কর্তৃক অস্ত্র গুঁজে দিয়ে আটক করার চেষ্টা করে ও ক্যাম্পে দেখা করতে বলে এক নিরীহ জুম্মকে হয়রানি এবং অপর এক জুম্মকে আটকের পর ছেড়ে দিয়ে তার কাছ থেকে ২৫,০০০ টাকা আদায় করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল ১২ মে ২০২১ রাত আনুমানিক ৯:৩০ টার দিকে ফারুয়া ইউনিয়নের ফারুয়া সেনা ক্যাম্পের অপরাজেয় ৬ এর সেনাবাহিনীর একটি দল আমকাটা ছড়া গ্রামে যায়। এক পর্যায়ে সেনাদলটির সদস্যরা মানিক তঞ্চঙ্গ্যা (৪০), পীং-পালশিং তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক জুম্ম দোকানদারের দোকানে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে অস্ত্র রেখে দিয়ে মানিক তঞ্চঙ্গ্যাকে আটক করে। পরে বিভিন্ন প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার পর সেনা সদস্যরা মানিক তঞ্চঙ্গ্যাকে ছেড়ে দেয়। তবে পরদিন তাকে (১৩ মে ২০২১) সকালে সেনা ক্যাম্পে গিয়ে কম্যান্ডারের সাথে দেখা করতে হবে নির্দেশ দিয়ে যায়।

এছাড়া আরো জানা গেছে, গত ২০ এপ্রিল ২০২১ ফারুয়া সেনা ক্যাম্পের কম্যান্ডার মো: রমজান এর নেতৃত্বে একটি সেনাদল এগুজ্জেছড়ি গ্রামে গিয়ে একই কায়দায় বাদিক তঞ্চঙ্গ্যা (৪১), পীং-সুবল তঞ্চঙ্গ্যা নামে এক জুম্ম দোকানদারকে আটক করে এবং কিছুক্ষণ পর ছেড়ে দিয়ে ওই দোকানদারকে পরে সেনা ক্যাম্পে গিয়ে তাদের সাথে দেখা করতে বলে। পরে বাদিক তঞ্চঙ্গ্যা সেনা ক্যাম্পে গিয়ে ক্যাম্পের কম্যান্ডার মো: রমজান এর সাথে দেখা করতে যায়। এসময় ক্যাম্প কম্যান্ডার বিভিন্ন ভয় দেখিয়ে বাদিক তঞ্চঙ্গ্যার কাছে ২,৫০,০০০ (দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) টাকা দাবি করে। পরে বাদিক তঞ্চঙ্গ্যা কম্যান্ডার মো: রমজানকে ২৫,০০০ টাকা দিতে বাধ্য হয় বলে জানা গেছে।

আমকাটা ছড়া গ্রামের কয়েকজন গ্রামবাসীর আশঙ্কা, ফারুয়া সেনা ক্যাম্পের কম্যান্ডার পূর্বের ন্যায় গোপনে মানিক তঞ্চঙ্গ্যার কাছ থেকে আজকেও টাকা আদায় করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here