বান্দরবানে সেনাবাহিনী কর্তৃক এক নিরীহ জুম্ম মুদি দোকানদারকে আটক

0
225
ছবি: প্রতিকী

হিল ভয়েস, ২৪ জানুয়ারি ২০২২, বান্দরবান: বান্দরবান সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের ডুলুপাড়াস্থ সেনাবাহিনীর চেকপোষ্টে রক্সিমং মারমা (৪০) নামে এক নিরীহ মুদি দোকানদারকে আটক করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত বুধবার (১৯ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৬:০০ ঘটিকার সময় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। আটকের সময় আটককৃত রক্সিমং মারমা থেকে ৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে সেনাবাহিনী দাবি করেছে।

আটককৃত রুক্সিমং মারমা রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের কারিগর মেমং মারমার ছেলে। তার কারিগর পাড়ায় একটি মুদি দোকান রয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে যে, বান্দরবান সদরস্থ ডুলুপাড়া চেকপোস্টে বুধবার সন্ধ্যা ৬:০০ ঘটিকার সময় সেনাবাহিনীর ৫ ইবির আওতাধীন ডুলুপাড়া ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডার ক্যাপ্টেন সাজেদুর রহমানের নেতৃত্বে ডুলুপড়া চেকপোস্টের ডিউটিরত সেনা সদস্যরা মোটরসাইকেল আরোহী রক্সিমং মারমাকে তল্লাশি চালিয়ে নগদ ৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকাসহ তাকে আটক করেছে।

আটকের পর সেনাবাহিনী রক্সিমং মারমাকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির চাঁদাবাজ হিসেবে অভিযুক্ত করে এবং রক্সিমং মারমা থেকে উদ্ধারকৃত ৭ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা চাঁদাবাজির টাকা বলে প্রচার করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় যে, রক্সিমং মারমা থেকে উদ্ধারকৃত উক্ত টাকা বাবুল মারমা নামে একজন ব্যাংক কর্মচারির। বাবুল মারমা নিজের চিকিৎসার জন্য বিজিবিতে চাকরিরত এক আত্মীয়ের কাছে তার জায়গা বিক্রি করেছেন এবং রক্সিমং মারমা উক্ত টাকাগুলো বহনকালে ডুলুপাড়া চেকপোষ্টে সেনাবাহিনী কর্তৃক টাকাসহ তাকে আটক করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ডলুপাড়াস্থ এক জনপ্রতিনিধি বলেন, নিরাপত্তার নামে সেনাবাহিনী উক্ত ডুলুপাড়া চেকপোষ্টে নিরীহ লোকদেরকে নিয়মিত অহেতুক তল্লাসী ও নানাভাবে হয়রানি করে থাকে। অথচ সেই চেকপোষ্টের সামনে অস্ত্র নিয়ে মগপার্টি, সংস্কারপন্থী ও ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সশস্ত্র সন্ত্রাসী যাতায়াত করলেও সেনাবাহিনীর তল্লাসীতে ধরা পড়ে না বলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

গত ১২ ডিসেম্বর ২০২১ দিবাগত রাতে মগপার্টির সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা পোয়াইতু পাড়া থেকে একটি বি৭০ গাড়ি যোগে চেমি ডুলুপাড়া গিয়ে পুশৈথোয়াই মারমাকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে আমতলীপাড়ায় নিয়ে গুলি করে হত্যা করলেও সেনাবাহিনীর ডুলুপাড়া চেকপোষ্টে সন্ত্রাসীদের চোখে পড়েনি বলে উদাহরণ হিসেবে উক্ত জনপ্রতিনিধি উল্লেখ করেন।

তিনি আরো বলেন, সেনাবাহিনীর তথাকথিত নিরাপত্তা তল্লাসীতে সাধারণ নিরীহ লোকদের নিজস্ব টাকাপয়সা নিয়ে যাতায়াত করাও এখন নিরাপদ নয় বলে তিনি জানান।

সূত্রে আরো জানা গেছে যে, রক্সিমং মারমার মাধ্যমে টাকা নেয়ার খবর মগপার্টি সন্ত্রাসীরা জানতে পেরেছে এবং তৎপ্রেক্ষিতে মগপার্টি সদস্যদের খবরের ভিত্তিতে সেনাবাহিনী রক্সিমং মারমারা টাকাসহ আটক করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here