বান্দরবানে প্রতিপক্ষের গুলিতে এক ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সন্ত্রাসী নিহত

0
682
ছবিঃ জ্বলন্ত তঞ্চঙ্গ্যা

হিল ভয়েস, ১৫ মার্চ ২০২২, বান্দরবান: বান্দরবান পার্বত্য জেলার বান্দরবান সদর উপজেলাধীন টংকাবতী ইউনিয়নে জ্বলন্ত তঞ্চঙ্গ্যা (৩৫) নামে সেনামদদপুষ্ট ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সন্ত্রাসী দলের এক সদস্য গুলিতে নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। এলাকায় নিজেদের আধিপত্য বজায় রাখা ও চাঁদাবাজিকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট পারস্পরিক কোন্দলের কারণে সেনামদদপুষ্ট অপর সন্ত্রাসী দল ‘মগ পাটি’র সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে গোপন একটি সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

আজ ১৫ মার্চ ২০২২ বিকাল আনুমানিক ৪:০০ টার দিকে টংকাবতী ইউনিয়নের পুনর্বাসন চাকমাপাড়া ও বন বিভাগের রেঞ্জ কার্যালয়ের মাঝামাঝি ব্রিকফিল্ড এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় সূত্রে খবর পাওয়া গেছে।

নিহত জ্বলন্ত তঞ্চঙ্গ্যার বাড়ি রাঙ্গামাটি জেলাধীন রাজস্থলী উপজেলার চিংক্ষ্যং এলাকায় বলে জানা গেছে। তিনি বর্তমানে বান্দরবানের টংকাবতী এলাকায় ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের চাঁদা সংগ্রাহকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, টংকাবতীর স্থানীয় এক ব্রিকফিল্ড এলাকায় চাঁদা সংগ্রহের কাজে মোটর সাইকেলে যাতায়াতের সময় প্রতিপক্ষ অস্ত্রধারীরা গুলি করলে ঘটনাস্থলে জ্বলন্ত তঞ্চঙ্গ্যা নিহত হন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, বছরখানেক আগে সেনাবাহিনীই বান্দরবানে জনসংহতি সমিতির নেতাকর্মী ও সমর্থকদের এলাকায় দমন-পীড়ন, অপহরণ, হত্যাসহ সন্ত্রাসী ঘটনা জোরদারের লক্ষে রাঙ্গামাটির রাজস্থলী ও খাগড়াছড়ি থেকে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) ও সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীদের নিয়ে আসে। এরপর থেকে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) ও সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীদের সাথে ‘মগ পার্টি’ সন্ত্রাসীদের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ঠান্ডা লড়াই শুরু হয়।

সূত্রটি আরও জানায়, সাম্প্রতিককালে সেনাবাহিনী ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) ও সংস্কারপন্থী সন্ত্রাসীদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে অসন্তোষ প্রকাশ করে। ফলে সম্প্রতি সেনাবাহিনী ‘মগ পার্টি’কে দিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড জোরদার করার উদ্যোগ নেয়। ইতোমধ্যে সেনাবাহিনী মগ পার্টির প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট মহলকে নিয়ে ষড়যন্ত্রমূলক একাধিক গোপন বৈঠক করেছে বলে জানা গেছে।

উক্ত প্রেক্ষাপটে টংকাবতী এলাকাসহ বান্দরবানের বিভিন্ন এলাকায় আধিপত্য বজায় রাখা ও চাঁদাবাজিকে কেন্দ্র করে ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) ও সংস্কারপন্থী এবং মগ পার্টির মধ্যেকার দ্বন্দ্বের জের হিসেবে জ্বলন্ত তঞ্চঙ্গ্যা হত্যার ঘটনা ঘটেছে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লাশটি উদ্ধারে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।