বান্দরবানে দুর্বৃত্ত কর্তৃক এক মারমা গ্রামবাসীকে গলাকেটে হত্যা

0
859
নিহতের ছবি

হিল ভয়েস, ১৫ জুলাই ২০২২, বান্দরবান: বান্দরবান পার্বত্য জেলাধীন সদর উপজেলার ৬নং জামছড়ি ইউনিয়নে একদল দুর্বৃত্ত কর্তৃক শৈসিংমং মারমা (৪০), পীং-খ্যিদুং মারমা নামে এক নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসীকে গলাকেটে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ (১৫ জুলাই ২০২২) ভোররাত আনুমানিক ২:৩০ টার দিকে জামছড়ি ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাঘমারা হেডম্যান পাড়ায় ভিকটিমের নিজ বাড়িতে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, হত্যার শিকার শৈসিংমং মারমার নিজের পিতার বাড়ি লামা উপজেলার রুপসী পাড়া ইউনিয়নের দরদরী নোয়াপাড়া গ্রামে। প্রায় ২০ বছর আগে তিনি লামার রুপসী পাড়া ইউনিয়নের নিজ বাড়ি থেকে এসে জামছড়ির বাঘমারা হেডম্যান পাড়ায় ঘরজামাই হিসেবে শশুর বাড়িতে স্ত্রী, সন্তান নিয়ে বসবাস করছিলেন। তিনি মূলত বর্গাচাষি কৃষক ও পার্টটাইম ইলেক্ট্রিশিয়ানের কাজ করতেন বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভোররাত আনুমানিক ২:১৫ টা হতে ২:৩০ টার দিকে শৈসিংমং মারমা প্রস্রাব করার জন্য ঘুম থেকে উঠলে এমন সময় কয়েকজন দৃর্বৃত্ত বাড়িতে প্রবেশ করে শৈসিংমং মারমাকে নৃশংসভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে চলে যায়।

নিহত শৈসিংমং মারমার স্ত্রী উম্যানু মারমা (৩৬) জানান, ‘৩ জন মুখোশধারী লোক গভীর রাতে ঘরে ঢুকে তার স্বামীকে গলাকেটে হত্যা করে।’ বাড়িতে শৈসিংমং মারমা, তার স্ত্রী ও তাদের দুই কন্যা সন্তান থাকত বলে জানা গেছে। ঘটনার পরপরই উম্যানু মারমা ভয়ে তার দুই সন্তান নিয়ে এক প্রতিবেশীর বাড়িতে আশ্রয় নেয় বলে জানা যায়।

আজ সকাল ১০:০০ টার দিকে পুলিশ শৈসিংমং মারমার গলাকাটা লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে গেছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, যে গ্রামে শৈসিংমং মারমা হত্যার শিকার হয়েছেন ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি হেডম্যান মংপু মারমার বাড়িও সেই গ্রামে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করেনি বলে জানা গেছে।