বান্দরবানের রুমায় সেনাবাহিনী কর্তৃক ১৬ জুম্ম মারধরের শিকার!

0
1278

হিল ভয়েস, ১৪ মার্চ ২০২১, বান্দরবান: সম্প্রতি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক বান্দরবান পার্বত্য জেলাধীন রুমা উপজেলার বগালেক এলাকায় পৃথক দুইটি ঘটনায় ১৬ নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমাসের প্রথমদিকে এই ঘটনা ঘটে। কিন্তু নির্যাতনের ভয়ে ভুক্তভোগীরা কোন গণমাধ্যমে তা জানাননি বলে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ মার্চ ২০২১ রাত আনুমানিক ১১:০০ টার দিকে রুমা সদর ইউনিয়ন এলাকার বগালেক সেনা ক্যাম্প কম্যান্ডার সুবেদার জাহিদ এর নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর ১৬ জনের একটি দল পার্শ্ববর্তী মংথোয়াইচিং পাড়া নামক জুম্ম গ্রামে যায়। এসময় সেনাদলটি কোন কথাবার্তা ছাড়াই ৭ মারমা গ্রামবাসীকে বেদম মারধর করে। ঐ রাতে উক্ত গ্রামবাসীরা গ্রামের বৌদ্ধ মন্দিরে ঘুমিয়ে ছিলেন। এদিন গ্রামবাসীরা মন্দিরের বিভিন্ন কাজে অংশ নিয়ে রাতেই সেখানে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এসময় সেনা সদস্যরা জুতা পায়ে মন্দিরে প্রবেশ করে উক্ত গ্রামবাসীদের ঘুম থেকে তুলে মারধর করে।

মংথোয়াইচিং পাড়া’র মারধরের শিকার গ্রামবাসীরা হলেন- ১. রেদাসে মারমা (৪১), পীং-মংথোয়াইচিং মারমা (কার্বারি); ২. হ্লানুমং মারমা (৩১), পীং-ক্যথোয়াই অং মারমা; ৩. ক্যনুচিং মারমা (২৫), পীং-ঐ; ৪. মংক্যাইনু মারমা (১৬), পীং-আচ মারমা; ৫. মংচপ্রু মারমা (২৪), পীং-চিংসা অং মারমা; ৬. থুইচিংমং মারমা (৪৪), পীং-অজ্ঞাত; ৭. চমংসিং মারমা (২১), পীং-সিংথোয়াইচিং মারমা।

এরপর রাত ১২:০০ টার দিকে উক্ত সেনাদলটি মংথোয়াইচিং পাড়া ত্যাগ করে প্রংফুংমক খুমি পাড়ায় যায়। সেখানেও কোন কথাবার্তা ছাড়াই সেনা সদস্যরা ৯ জন খুমি গ্রামবাসীকে ঘুম থেকে তুলে বেদম মারধর করে। এর কিছুক্ষণ পর সেনাদলটি সেখানে থেকে চলে যায়। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উক্ত ৯ জন খুমির নাম জানা যায়নি।

সেনাবাহিনীর এই আকস্মিক ও অন্যায় নির্যাতনের ঘটনায় এলাকার জুম্মদের মধ্যে উদ্বেগ, অসন্তোষ ও ক্ষোভের সৃষ্টি হয় বলে জানা যায়।