পার্বত্য চট্টগ্রামে ধর্মান্তরকরণ উদ্বেগজনক: দিল্লীতে পহেলা বৈশাখ ও গড়িয়া উৎসবে বক্তারা

0
87

হিল ভয়েস, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, বিশেষ প্রতিবেদক:গত রবিবার (২১ এপ্রিল) দিল্লীর রাজুরী গার্ডেনস্থিত স্বরস্বতী বাল মন্দির স্কুলের সন্মেলন কক্ষে পহেলা বৈশাখ এবং গড়িয়া উৎসব অনুষ্ঠান পালিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানটি আয়োজন করেন দিল্লী ভিত্তিক “ত্রিপুরা সংস্কৃতি সমিতি” এবং “পূর্বোত্তরায়ম” সংস্থা।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উত্তর-পূর্ব ভারতের আরএসএস এবং বনবাসী কল্যান আশ্রমের প্রধান ড. প্রমোদ পেথকর, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পিস ক্যাম্পেইন গ্রুপের প্রেসিডেন্ট করুনালঙ্কার ভিক্ষু, দিল্লী সরকারের ইঞ্জিনিয়ার সাধন ভরদ্বাজ, দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপিকা মিসেস অর্চনা জমাতিয়া, ডাক্তার পি কে সাহা এবং অন্যান্য প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।

ড. সুব্রত ভৌমিকের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দিল্লীতে অবস্থানরত শতাধিক বাঙালি, ত্রিপুরী এবং চাকমা ব্যক্তিবর্গ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. প্রমোদ পেথকর বলেন যে, তিনি দীর্ঘ বছর ধরে উত্তর-পূর্ব ভারতের আদিবাসীদের বিষয়ে জানেন এবং তাদের শিক্ষা-দিক্ষায় উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাবেন। আর চাকমাদের বিজু নৃত্য এবং ত্রিপুরীদের গড়িয়া নৃত্যকে প্রশংসা করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পিস ক্যাম্পেইন গ্রুপের করুণালঙ্কার ভিক্ষু বলেন, আদিবাসীদের নিজস্ব সমৃদ্ধ সংস্কৃতি রয়েছে। তারা তাদের সংস্কৃতি ও প্রথা প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে সমুন্নত রাখতে বদ্ধপরিকর। তবে পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে উদ্বেগজনক খবর পাওয়া যায়। সেখানে সনাতন ধর্মাবলম্বী ত্রিপুরা জনগোষ্ঠীকে নানা প্রলোভন ও ফাঁদে ফেলে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তর করা হচ্ছে। গত ঈদে (১১ এপ্রিল ২০২৪) ১২৩ পরিবারকে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তর করা হয়েছে মর্মে সংবাদ পাওয়া গেছে। এই ধর্মান্তর বন্ধের জন্য সকলেই উদ্যোগ নিতে হবে।

অনুষ্ঠান শেষে হিন্দু বাঙালি নৃত্য, গড়িয়া নৃত্য এবং বিজু নৃত্য পরিবেশন করা হয়।