নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত না হলে সংখ্যালঘুরা নতুন করে ভাবতে বাধ্য হবেঃ অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত

0
393
ছবি: বক্তব্য রাখছেন অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত

হিল ভয়েস, ৬ মে ২০২৩, চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় বক্তব্য প্রদানকালে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত আগামী অক্টোবর মাসের মধ্যে সংখ্যালঘু স্বার্থবান্ধব নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিসমূহ বাস্তবায়নের জন্যে সরকারের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, অন্যথায় আগামী সংসদ নির্বাচনে ধর্মীয়-জাতিগত সংখ্যালঘুরা আগামী সংসদ নির্বাচনের পূর্বে নতুন করে ভাবতে বাধ্য হবে।

আজ (৬ মে ২০২৩) সকাল ১০ টায় চট্টগ্রামের বাংলাদেশ হিন্দু ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত উক্ত বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় বক্তব্য প্রদানকালে অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত এসব কথা বলেন।

প্রকৌশলী পরিমল কান্তি চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই প্রতিনিধি সভায় চট্টগ্রাম বিভাগের মোট ১৩টি জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন। এদের মধ্যে ছিলেন- অ্যাডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ (চট্টগ্রাম মহানগর), অ্যাডভোকেট প্রদীপ চৌধুরী (চট্টগ্রাম দক্ষিণ), ইন্দু নন্দন দত্ত (চট্টগ্রাম উত্তর), অ্যাডভোকেট বিনয় ভূষণ মজুমদার ও অ্যাডভোকেট রঞ্জিত রায় চৌধুরী (চাঁদপুর), শংকর মজুমদার ও অ্যাডভোকেট মিলন মন্ডল (লক্ষ্মীপুর), চন্দন কুমার রায় ও অধ্যক্ষ তাপস কুমার বক্সী (কুমিল্লা), মুক্তিযোদ্ধা বিনয় কিশোর রায় ও অ্যাডভোকেট পাপ্পু সাহা (নোয়াখালী), শুকদেব নাথ তপন ও লিটন সাহা (ফেনী), মুক্তিযোদ্ধা দিলীপ কুমার নাগ ও প্রদ্যুৎ কুমার নাগ (ব্রাহ্মণবাড়ীয়া), অনিল দাশ ও মং নেই চেং (বান্দরবান), অ্যাডভোকেট দীপংকর বড়–য়া ও অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা (কক্সবাজার), দীপেন কুমার ঘোষ ও পলাশ কুসুম চাকমা (রাঙ্গামাটি), বিপ্লব কুমার শীল (খাগড়াছড়ি) প্রমুখ। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট প্রিয় রঞ্জন দত্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক উত্তম চক্রবর্তী ও শ্যামল কুমার পালিত, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য শুভ্রদেব কর, শরৎজ্যোতি চাকমা, উত্তম কুমার শর্মা, গৌতম মজুমদার, সুবীর দত্ত।

জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা ও এরপর সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিনিধি সভার কার্যক্রম শুরু হয়।

অ্যাডভোকেট রাণা দাশগুপ্ত সরকারের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিসমূহ বাস্তবায়নের লক্ষে পরিচালিত মানবাধিকার আন্দোলনের এক পর্যায়ে সরকারি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষতের বিবরণ দিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপরে আমরা শেষ ভরসা রাখতে চাই। তিনি তাঁর নির্বাচনী অংঙ্গীকারগুলো অচিরেই বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি ধর্মীয়-জাতিগত সংখ্যালঘু ভোটারদের অবজ্ঞা, অবহেলা ও উপেক্ষা না করার জন্য সকল গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলের প্রতি আহ্বান জানান।

কেন্দ্রীয় সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মিলন কান্তি দত্ত তাঁর বক্তব্যে দাবি আদায়ে আলোচনার পাশাপাশি জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলার উপর জোর গুরুত্ব আরোপ করেন।

কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনীন্দ্র কুমার নাথ বলেন, লক্ষ্য অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরে যাবো না।

সভায় অতিসম্প্রতি নেত্রকোণায় স্কুল ছাত্রী মুক্তি রাণী বর্মণের হত্যাকান্ডে গভীর ক্ষোভ প্রকাশ করা হয় এবং এ ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তির শাস্তি নিশ্চিতের জোর দাবি জানানো হয়।