জুরাছড়ির মৈদুঙে সেনাবাহিনীর ব্যাপক তল্লাশি অভিযান, এক জুম্মকে আটক ও মারধর, পরে মুক্তি

0
1571
ছবি : প্রতীকী

হিল ভয়েস, ১৭ জুন ২০২১, রাঙ্গামাটি: বাংলাদেশ সেনাবাহিনী কর্তৃক রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন জুরাছড়ি উপজেলার মইদুং ইউনিয়নের আমতলা ও গাত্তোপাড়া নামক জুম্ম গ্রামে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ ১৭ জুন ২০২১ সকাল থেকে প্রায় বিকেল পর্যন্ত সেনাবাহিনী এই অভিযান পরিচালনা করে। এসময় সেনা সদস্যরা এক নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসীকে আটক করে ব্যাপক মারধর করে এবং প্রায় তিন ঘন্টা পর ছেড়ে দেয়। এছাড়া সেনা সদস্যরা দুই জুম্মর বাড়িতে হয়রানিমূলকভাবে তল্লাশি ও বাড়ির জিনিসপত্র তছনছ করেছে বলে জানা গেছে।

আটক ও মারধরের শিকার ব্যক্তি হলেন সবিনয় চাকমা (৩৫), পীং-গুরিমরত্তো চাকমা, গ্রাম-আমতলা, মইদুং ইউনিয়ন। অপরদিকে তল্লাশির শিকার বাড়ির মালিকরা হলেন- কান্তি চাকমা (২৮), পীং-হেঙত্তে চাকমা, গ্রাম-আমতলা ও শ্রীমন্ত চাকমা (৭০), পীং-অজ্ঞাত, গ্রাম-গাত্তোপাড়া।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ সকাল থেকে জুরাছড়ি উপজেলার বনযোগীছড়া সেনা জোনের আওতাধীন লুলংছড়া সেনা ক্যাম্পের ওয়ারেন্ট অফিসার মো: কুতুক এর নেতৃত্বে ২৭ জনের একটি সেনাদল প্রথমে আমতলা গ্রামে ও পরে গাত্তোপাড়া গ্রামে তল্লাশি অভিযান শুরু করে। এসময় সেনা সদস্যরা প্রথমে কান্তি চাকমার বাড়িতে এবং পরে শ্রীমন্ত চাকমার বাড়িতে প্রবেশ করে ব্যাপক তল্লাশি চালায় এবং বাড়ির জিনিসপত্র তছনছ করে দেয়।

তল্লাশি অভিযানের এক পর্যায়ে বিকাল ৪:০০ টার দিকে সেনা সদস্যরা নিরীহ গ্রামবাসী সবিনয় চাকমাকে আটক করে এবং ব্যাপক মারধর করে।

সেনাবাহিনীর দিনব্যাপী এই তল্লাশি অভিযান ও নিরীহ ব্যক্তিকে মারধরের ফলে এলাকায় ব্যাপক আতঙ্ক ও ক্ষোভ সৃষ্টি হয় বলে জানা গেছে।

এদিকে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত, রাত আনুমানিক ৭:৩০ টার দিকে সেনাবাহিনী আটককৃত সবিনয় চাকমাকে ছেড়ে দিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।