জুরাছড়িতে সেনাবাহিনী কর্তৃক একজনকে আটক, অমানষিক মারধরের পর মুক্তি

0
231
ছবি : প্রতিকী

হিল ভয়েস, ২২ জানুয়ারি ২০২২, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি জেলার জুরাছড়ি উপজেলাধীন মৈদুং ইউনিয়নে একজন নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসীকে সেনাবাহিনীর বনযোগীছড়া জোন নিয়ন্ত্রণাধীন শিলছড়ি ক্যাম্পের একদল সেনা কর্তৃক আটক করে সেনা ক্যাম্পে নিয়ে যায় এবং বেদম মারধরের পর বিকালে ছেড়ে দেয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ৬:১০ ঘটিকায় উক্ত ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় যে, আজ শনিবার সকাল ৬:০০ ঘটিকায় জুরাছড়ি উপজেলাধীন বনযোগীছড়া জোনের অধীনে শিলছড়ি ক্যাম্প থেকে জনৈক মেজর ও ওয়ারেন্ট অফিসার মুছার নেতৃত্বে আনুমানিক ২০/২৫ জনের একদল সেনা ৩নং মৈদং ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে এক অভিযান চালায়।

এসময় সেনা সদস্যরা জনসংহতি সমিতির মৈদং ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ভাগ্যধন চাকমার বাড়ি ঘেরাও করে। সেনা সদস্যরা বাড়ির ভেতরে ঢুকে তল্লাসী চালায় এবং বাড়ির জিনিষপত্র তছনছ করে। তবে এ সময় ভাগ্যধন চাকমা বাড়িতে ছিলেন না।

সেনা সদস্যরা ভাগ্যধন চাকমাকে না পেয়ে তার ছেলে সুভাষ চাকমা (২২) বাড়ি থেকে আটক করে। কোন অভিযোগ ছাড়াই সেনা সদস্যরা সুভাষ চাকমাকে রশি বেঁধে গাছে ঝুলিয়ে অমানষিকভাবে মারধর করে। মারধর করার পর ক্যাম্পে নিয়ে যায়। পরে গ্রামের মুরুব্বীরা ক্যাম্পে গেলে তাদের জিম্মায় সুভাষ চাকমাকে শিলছড়ি ক্যাম্প থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।

অন্যদিকে উক্ত অভিযানের সময় সেনা সদস্যরা জনসংহতি সমিতির আজাছড়ি গ্রাম শাখার সভাপতি শরৎ কুমার চাকমা, পিতা সতীশ চন্দ্র চাকমার বাড়িও তল্লাশি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here