কাপ্তাইয়ে মগ পার্টি সন্ত্রাসীদের কর্তৃক দুই নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসীকে অপহরণ, পরে মুক্তি

0
606
ছবি: প্রতীকী

হিল ভয়েস, ৩১ আগস্ট ২০২২, রাঙ্গামাটি: সেনাবাহিনী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ মদদপুষ্ট মগ পার্টি সন্ত্রাসীদের কর্তৃক রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন কাপ্তাই উপজেলার চিম্রং (চিৎমরম) ইউনিয়নের দুই নিরীহ জুম্ম গ্রামবাসী অপহরণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে অপহৃতদের মধ্যে একজন প্রায় ১১ ঘন্টা পর এবং আরেকজন প্রায় ৬ ঘন্টা পর মুক্তি পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

অপহরণের শিকার দুই ব্যক্তি হলেন- (১) ম্রাসুই খই মারমা কার্বারি (৫০), পীং-মৃত সুইপ্রু সাইন মারমা, গ্রাম-চাকুয়া বড় পাড়া, ৭নং ওয়ার্ড, চিম্রং ইউনিয়ন এবং খ্যামংউ মারমা (৪১), পীং-মংসাথোয়াই মারমা, গ্রাম-চিম্রং আমতলি পাড়া, ৩নং ওয়ার্ড, চিম্রং ইউনিয়ন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ ৩১ আগস্ট ২০২২ সকাল আনুমানিক ৯:০০ টার দিকে মগ পার্টির বর্তমান সেকেন্ড-ইন-কম্যান্ড সবুজ মারমার নেতৃত্বে মগ পার্টির সন্ত্রাসীদের একটি দল প্রথমে ম্রাসুই খই মারমা কার্বারিকে তার বাড়ি থেকে অপহরণ করে। এরপর সন্ত্রাসীরা দুপুর ২:০০ টার দিকে খ্যামংউ মারমাকেও অপহরণ করে। খ্যামংউ মারমাকে অপহরণের সময় সন্ত্রাসীরা কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিও ছোঁড়ে।

অপহরণের পর মগ পার্টির সন্ত্রাসীরা অপহৃত দুই গ্রামবাসীকেই চিৎমরমে আটক করে রাখে।

জানা গেছে, অপহরণের শিকার ম্রাসুই খই মারমা কার্বারি ও খ্যামংউ মারমা উভয়েই নিরীহ গ্রামবাসী। ম্রাসুই খই মারমা কার্বারির একটি ছোট চায়ের দোকান আছে এবং মাঝে মাঝে চালও বিক্রি করেন। অপরদিকে খ্যামংউ মারমা প্রাইভেটে ছাত্র-ছাত্রী পড়ান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গ্রামবাসী জানান, এলাকায় আধিপত্য বজায় রাখা ও নিজের দাপট দেখানোর উদ্দেশ্যে এই অপহরণ নাটকের পেছনে জেলা পরিষদের সদস্য ও রাজস্থলী উপজেলার আওয়ামী লীগ সভাপতি অংশৈছাইন এর ইন্ধন রয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ম্রাসুই খই মারমা কার্বারিকে প্রায় ১১ ঘন্টা এবং খ্যামংউ মারমাকে প্রায় ৬ ঘন্টা আটক রাখার পর রাত আনুমানিক ৮:০০ টার দিকে উভয়কে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।