বরকলে সেটেলার বাঙালি কর্তৃক মারধরের শিকার এক জুম্ম গ্রামবাসী

0
742
মারধরের শিকার জুম্ম গ্রামবাসী

হিল ভয়েস, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলাধীন বরকল উপজেলার আইমাছড়া ইউনিয়নে নিজের জমির উপর গরু চড়াতে বাঁধা দেয়ায় সেটেলার বাঙালি কর্তৃক এক জুম্ম গ্রামবাসী মারধরের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২ উপজেলার আইমাছড়া ইউনিয়নে কলাবুনিয়ার এলাকায় ৫ জন সেটেলার বাঙালি কর্তৃক অমর কান্তি চাকমা (৩৫) নামে এই জুম্ম গ্রামবাসীকে মারধরের ঘটনা ঘটে। অমর কান্তি চাকমার বাড়ি আইমাছড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড এলাকায়। আক্রমণকারী সেটেলার বাঙালিরা হল আইমাছড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ দুর্জয়, মোঃ আকাশ, মোঃ আরিফ, মর্জিনা বেগম ও টুনি।

ঘটনার শিকার অমর কান্তি চাকমা জানান, আমাদের চাষাবাদ করা জমিতে গরু না চড়ানোর জন্য গরুর মালিক সেটেলার বাঙালিদের বহুবার সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু তারা কথা শোনেননি। এত করে সতর্কতা দেয়া সত্বেও জমিতে খোলামেলাভাবে তারা গরুগুলো ছেড়ে দেন। এতে জমির ফসল ক্ষতি হয়। এই সমস্যাটি ছিল দীর্ঘদিনের।

তিনি আরও বলেন, আজকেও তারা (সেটেলার বাঙালিরা) প্রতিবারের ন্যায় গরুগুলো ছেড়ে দেন। এরপর গরুগুলো জমির উপর খোলামেলাভাবে চড়তে দেখে তাদের বাড়িতে এগিয়ে দিয়ে আছি। এরপর নিজের জমিতে মাটি কাটার কাজ ধরি। পরবর্তীতে তারা বিকাল ৩:৩০টার দিকে আমাকে খুঁজতে খুঁজতে চলে আসে। এরপর আমি কেনো গরুগুলো বাড়িতে তাড়িয়ে দিয়ে এসেছি-এই কথা বলতেই মোঃ দুর্জয়, মোঃ আকাশ, মোঃ আরিফ, মর্জিনা বেগম ও টুনি ৫জন মিলে আমাকে আক্রমণ করে এবং মারধর করতে থাকে।

ওই ঘটনার খবর শুনে পার্শ্ববর্তী স্নেহ কুমার চাকমা দৌঁড়ে এসে তাকে উদ্ধার করায় প্রাণে বেঁচে যান বলে জানান অমর কান্তি চাকমা।

উল্লেখ্য, উক্ত সেটেলার বাঙালিরা ঐ এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা নন। ১৯৭৯-৮০ সালের দিকে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পার্বত্য চট্টগ্রামের বাইরে থেকে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ ঘটিয়ে জুম্ম অধ্যুষিত আইমাছড়া এলাকায় জোরপূর্বক বসতিদান করা হয়। এরপরও তারা পার্শ্ববর্তী জুম্মদের অনেক জায়গা-জমি বেদখল করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here