রোডম্যাপ ঘোষণা করে পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের দাবিতে রাবি ক্যাম্পাসে পিসিপি’র সমাবেশ

0
454

হিল ভয়েস, ২৬ নভেম্বর ২০২২, রাজশাহী: আজ ২৬ নভেম্বর ২০২২ দ্রুত রোডম্যাপ ঘোষণা করে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ ও পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের দাবিতে পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), রাজশাহী মহানগর শাখার উদ্যোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্যাম্পাসে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পিসিপি’র রাজশাহী মহানগর শাখার সভাপতি অমর বিকাশ চাকমার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক জীনিচ চাকমার সঞ্চালনায় সমাবেশে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন আদিবাসী ছাত্র পরিষদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সভাপতি সুশান্ত মাহাতো, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী’র রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি শাকিল আহমেদ, আদিবাসী স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক ধনেশ টুডু। সমাবেশের শুরুতে পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের দাবি সম্বলিত বিবৃতি পাঠ করেন কমিটির স্কুল ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক বিজয় চাকমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অর্থ সম্পাদক জেন্টল চাকমা।

সমাবেশে স্বাগত বক্তব্যে রাজশাহী মহানগরের অর্থ সম্পাদক জেন্টল চাকমা বলেন “দীর্ঘ ২৫ বছর সরকারের উপর আস্থা রেখেও সরকার পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের অগ্রগতি তো দূরের কথা, তার বিপরীতে সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামে উন্নয়নের নামে উচ্ছেদ, অপারেশন উত্তরনের নামে নিরীহ জুম্ম জনগণের উপর মিথ্যা মামলা সহ প্রতিনিয়ত হয়রানি করে চলেছে। যার কারণে জুম্ম জনগণের জাতীয় অস্তিত্ব বর্তমানে খুবই সংকটময়। সরকার চুক্তি বাস্তবায়ন না করলে জুম্ম জনগণ নিজেদের অধিকারের জন্য, অস্তিত্বের জন্য লড়াই করবে।”

সমাবশে সংহতি জানিয়ে সুশান্ত মাহাতো বলেন, “পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার ২৫ বছর পরও আজকে সে চুক্তি সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়া সেটি সত্যিই হতাশার একটি বিষয়। চুক্তি বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে আজকে পাহাড় এবং সমতলে আদিবাসীদের বেঁচে থাকার প্রধান যে অধিকার ভূমির অধিকার সেটা আজ বিপর্যস্ত অবস্থায় রয়েছে। এর কারণে প্রতিনিয়ত পাহাড় এবং সমতলে ভূমি বেদখল চলমান রয়েছে।”

সংহতি বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয় শাখার বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি শাকিল আহমেদ বলেন, “বাংলাদেশের বর্তমান যে সরকার ব্যবস্থা, সরকারের যারা নীতি নির্ধারণকারী রয়েছেন তারা আজকে শুধুমাত্র একশ্রেণির স্বার্থ রক্ষার্থে নিয়োজিত রয়েছেন। তারা আজকে শুধুমাত্র পুঁজিপতিদের চাওয়া-পাওয়া বাস্তবায়ন করার কাজে মনোযোগ দিয়েছেন। কিন্তু এই পুঁজিপতি বাদেও রাষ্ট্রে অন্যান্য শ্রেণি বা জনগোষ্ঠীগুলো রয়েছে, বিশেষ করে পাহাড় এবং সমতলে যে আদিবাসী জনগোষ্ঠীগুলো রয়েছে তাদের অধিকারের প্রতি সরকারের আজ কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই।” তার বক্তব্যে তিনি পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের দাবির সাথে সংহতি জানিয়ে সকল পাহাড়ী ছাত্র সমাজকে আরো এক হয়ে অধিকার আদায়ের আন্দোলনে সামিল হওয়ার আহবান জানান।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আদিবাসী স্টুডেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ধনেশ টুডু তার বক্তব্যে বলেন, “বর্তমান সরকার রাষ্ট্রের সকল নাগরিকের যে মৌলিক অধিকার সেগুলো আজ পূরণ করতে ব্যর্থ। রাষ্ট্রের সকল মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার আজ ব্যর্থ।” তিনি রাষ্ট্রের সকল নাগরিকদের সকল অধিকার নিশ্চিত এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ বাস্তবায়ন করার জন্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানান।

এরপর সমাবেশের শেষ মুহূর্তে সমাপনী বক্তব্যে পিসিপি’র রাজশাহী মহানগরের সভাপতি অমর বিকাশ চাকমা বলেন, “আর কয়েকদিনের মধ্যেই পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৫ বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে। কিন্তু এই চুক্তির ২৫ বছর উপলক্ষে আমাদের আনন্দ উৎযাপনের কথা ছিল, তার পরিবর্তে আজকে আমাদের বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ করতে হচ্ছে।” তিনি সরকারকে পার্বত্য চুক্তির রোডম্যাপ ঘোষণা করে চক্তির মূল বিষয়গুলো বাস্তবায়নের দাবি জানান।

সমাবেশের আগে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বুদ্ধিজীবী চত্বর থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে প্যারিস রোডে এসে শেষ হয়।