রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুদের উপর উগ্র মুসল্লীদের হামলা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট

0
109
ছবি : উগ্র মুসল্লীদের দেওয়া আগুনে জ্বলছে পীরগঞ্জের হিন্দুপল্লী

হিল ভয়েস, ১৯ অক্টোবর ২০২১, বিশেষ প্রতিবেদক: ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে রংপুরে পীরগঞ্জের হিন্দুপল্লীতে হামলা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট চালায় উগ্র মুসল্লীরা।  ১৭ অক্টোবর রবিবার রাত দশটার সময় এ ঘটনা ঘটে।

হামলা ও লুটপাটের শিকার গ্রামগুলো হল হিন্দু অধ্যুষিত বড় করিমপুর, কসবা ও উত্তরপাড়া এলাকা। এতে অন্তত ১৮ টি ঘর পুড়ে ছাইহয়ে যায় এবং ৪৮ টি ঘরে লুটপাট চালানো হয়। হামলার সময় স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের কৃষক, মৎসজীবী ও দিনমজুর মানুষজন প্রাণরক্ষার্থে ঘর থেকে পালিয়ে যান। তারা অভিযোগ করেন, উগ্র মুসল্লীরা হিন্দু বাড়িগুলো থেকে টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, গবাদিপশু লুটপাট করে। শেষে পেট্রোল ঢেলে ঘরবাড়িগুলোতে আগুন লাগিয়ে দেয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রংপুরের রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়ার এক হিন্দু কিশোর রবিবার ইসলাম ধর্মকে ‘অবমাননা করে’ ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এরপর কয়েকশত মুসল্লী সেই কিশোরের বাড়ি ঘেরাও করে। তবে তার আগেই সেই বাড়ির সদস্যরা অন্যত্র সরে যায়। সেসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পীরগঞ্জ থানার পুলিশ সদস্যরা এবং উপজেলানির্বাহী কর্মকর্তা সেই বাড়িতে যান। পুলিশ তখন পুরো বাড়ি ঘেরাও করে স্থানীয়দের বুঝিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করে।

কিন্তু সেই উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মাঝেই রবিবার রাত ১০ টায় ইউনিয়নটির হিন্দু অধ্যুষিত বড় করিমপুর, কসবা ও উত্তরপাড়া এলাকায় ঘরবাড়ি, দোকানপাট, মন্দিরে ভাঙচুর ও লুটপাট করে একদল উচ্ছৃঙ্খল মুসল্লী। পরে তারা অগ্নিসংযোগ করে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার বলেন, কথিত ফেসবুকের একটি পোস্টকে কেন্দ্র করে ৩টি গ্রামে ধ্বংসলীলা ও নাশকতা চালানো এবং নিরীহ মানুষের উপর পাশবিক নির্যাতন চালানো এটি একটি সুপরিকল্পিত হামলা।

তিনি আরো বলেন “রোববার রাতে প্রায় তিনশ মানুষ সমবেত হয়েছিল। তারা মুহুর্তের মধ্যে গ্রামে পেট্রোল ঢেলে অগ্নিসংযোগ করেছে।তাৎক্ষণিকভাবে পেট্রোল ছিটিয়ে অগ্নিসংযোগের ঘটনাটি সুপরিকল্পিত।“

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here