বিলাইছড়িতে রোহিঙ্গা মুসলিম কর্তৃক এক বাক প্রতিবন্ধী জুম্ম কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পিসিপির নিন্দা এবং ধর্ষকের শাস্তির দাবি

0
370

হিল ভয়েস, ২৭ মে ২০২৩, রাঙ্গামাটি: গত ২৫ মে ২০২৩ রাঙ্গামাটি জেলাধীন বিলাইছড়ি উপজেলার ৩নং ফারুয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের তাংকুইতাং পাড়ায় জুমঘরে এক বাক প্রতিবন্ধী জুম্ম কিশোরী আনুমানিক সকাল ১১:০০ ঘটিকার দিকে রোহিঙ্গা মুসলিম মো: হাসান (৪৮) কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হন। হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং চিহ্নিত ধর্ষক মো: হাসানকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানিয়েছে।

পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার সম্পাদক অন্তর চাকমা স্বাক্ষরিত এই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, “ঘটনার দিন পরিবারের লোকজন প্রতিদিনের ন্যায় জুমে কাজ করতে যায়। এই সুযোগে রোহিঙ্গা মুসলিম মো: হাসান (৪৮) আনুমানিক ১১:০০ ঘটিকায় জুম্ম কিশোরীকে ঘরে একা পেয়ে হাত বেঁধে ধর্ষণ করে। পরিবারের লোকজন ঘরে ফিরে ঘটনাটি জানার পর স্থানীয় হেডম্যান ও বাজার কমিটিকে অবগত করে। পরে পরিবার ও স্থানীয় লোকজনের দাবির মুখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ধর্ষক মো: হাসানকে তাংকুইতাং পাড়া থেকে আটক করতে বাধ্য হয়েছে।”

এতে আরও বলা হয়েছে, “পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রতিনিয়ত সেটেলার কর্তৃক জুম্ম নারী ধর্ষণ, অপহরণ ও নারী নির্যাতনের ঘটনা সংগঠিত হলেও সে ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু ও দ্রুত বিচার না হওয়ায় অপরাধীরা শাস্তির আওতার বাইরে থেকে যাচ্ছে। প্রশাসনের নির্লিপ্ততায় অপরাধীরা বারবার পার পেয়ে যাচ্ছে। ফলে এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটে চলেছে। এমনকি নিজ বাড়িতেও জুম্ম নারীরা অনিরাপদ। শুধু তাই নয়, অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।”

হিল উইমেন্স ফেডারেশন ও পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ অবিলম্বে আটককৃত ধর্ষক মো: হাসানসহ বিগত ঘটনাগুলোর প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু ও দ্রুত বিচার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের জোর দাবি জানিয়েছে।