বান্দরবান শহর থেকে এক মারমা কলেজ ছাত্র অপহরণের শিকার

0
697
ছবি: প্রতীকী

হিল ভয়েস, ১৮ জুলাই ২০২২, বান্দরবান: বান্দরবান পার্বত্য জেলা শহরের বড় রাজবিহার টাউন হল এলাকা থেকে মংসিংনু মারমা (২২), পীং-ক্যসাচিং মারমা নামে এক মারমা কলেজ ছাত্র অপহরণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত পরশু ১৬ জুলাই ২০২২ সন্ধ্যা আনুমানিক ৭:৩০ টার দিকে এই ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, ভুক্তভোগী ছাত্রটির বাড়ি হ্নারা মৌজার মনজয় পাড়া গ্রামে। তিনি রাঙ্গামাটি জেলাধীন রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া কলেজের একজন ছাত্র।

এদিকে অপহৃতের পরিবারের লোকজন গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠার মধ্যে রয়েছেন জানা গেছে। কারা, কেন মংসিংনু মারমাকে অপহরণ করে নিয়ে গেল তা তার পরিবারের লোকজন নিশ্চিত করে বলতে পারেনি।

অপরদিকে বান্দরবান শহরের ঘটনাস্থলের বাসিন্দা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তির মতে, ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের সন্ত্রাসীরাই এই অপহরণের ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। কারণ এইসব সন্ত্রাসীরাই বর্তমানে সেনাবাহিনী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের মদদে ও সহায়তায় বান্দরবান শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিচরণ ও চাঁদাবাজি করে থাকে। এর পূর্বেও তারা বান্দরবান সদর এলাকায় একাধিক অপহরণের ঘটনা ঘটিয়েছে।

তারা বলেন, কিছুদিন আগেও এই ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সন্ত্রাসীরা চসিংনু মারমা নামে এক যুবককে বান্দরবান সদরের নতুন ব্রীজ এলাকা থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে ঘটনাটি জানাজানি হলে, ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের এক সদস্য মে অং মারমার সুপারিশে চসিংনু মারমাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। উল্লেখ্য, চসিংনু মারমা সম্পর্কে মে অং মারমার ভাগিনা।

তারা আরো জানান, ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) সন্ত্রাসীদের প্রশাসনিক দায়িত্বে নিয়োজিত অনুপম চাকমা, বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি মংপু হেডম্যান ও শুখেন চাকমার নির্দেশনায় এবং প্রশাসনের নাকের ডগায় বান্দরবান শহরে অপহরণ, চাঁদাবাজি ইত্যাদি নিয়মিত সংঘটিত হয়ে চলেছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অপহৃত মংসিংনু মারমার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।