পাহাড়ের স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যকে ধ্বংস করা হচ্ছে: রাঙ্গামাটিতে চুক্তি বর্ষপূতি সভায় জলিমং মারমা

0
253

হিল ভয়েস, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩, রাঙ্গামাটি: পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি অনুসারে পার্বত্য চট্টগ্রামকে পাহাড়ি অধ্যুষিত অঞ্চল হিসেবে তার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য সংরক্ষণ ও বিকাশ সাধনের কথা থাকলেও সেটি আজ প্রতি পদে পদে লঙ্গিত হচ্ছে এবং পাহাড়ে স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যকে ধ্বংস করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে দাবি করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক জলিমং মারমা।

গতকাল শনিবার (২ ডিসেম্বর) পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটি উদ্যোগে রাঙ্গামাটির কুমার সুমিত রায় জিমনেসিয়াম প্রাঙ্গনে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি ২৬তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত গণসমাবেশে প্রধান অতিথি বক্তব্যে জলিমং মারমা এই মন্তব্য করেন।

তিনি আরো বলেন, ১৯৪৭ সালের দেশবিভাগের পর পার্বত্য চট্টগ্রামে পাহাড়ি জনসংখ্যা ছিল ৯৮.৬% এর বাঙ্গালি ১.৪% কিন্তু সেটি বর্তমানে পাহাড়ি ৪৯% এবং বাঙ্গালি ৫১% এসে দাঁড়িয়েছে। এটাই প্রতিয়মান হয় যে, জুম্ম অধ্যুষিত অঞ্চল আজ মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চলে পরিণত করার জন্য রাষ্ট্র নানাবিদ উদ্যোগ গ্রহণ করে চলেছে। আজ যেখানে রাষ্ট্র অসাম্প্রদায়িক, ধর্মনিরপেক্ষতার দাবি করছে অন্যদিকে উগ্র জাত্যাভিমান, উগ্র মৌলবাদী চিন্তা চেতনা থেকে রাষ্ট্র পরিচালত হচ্ছে।

পরিশেষে তিনি ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি করে, স্থায়ী বাসিন্দাদের নিয়ে ভোটার তালেকা প্রনয়ন পূর্বক পার্বত্য চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ ও পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ নির্বাচনসহ পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি বাস্তবায়নের দাবি জানান।

উল্লেখ্য যে, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আশিকা চাকমা সঞ্চালনায় এবং সভাপতি ডা. গঙ্গামানিক চাকমার সভাপতিত্বে উক্ত গণসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত গলসমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক জুয়েল চাকমা, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের পার্বত্য চট্টগ্রাম অঞ্চলের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা, বিশিষ্ট শিক্ষক, কবি ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শিশির চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুমিত্র চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শান্তিদেবী তঞ্চঙ্গ্যা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অরুন ত্রিপুরা। অনুষ্ঠানটি সকাল ৯:০০ ঘটিকায় গিরিসুর শিল্পীগোষ্ঠীর গণসংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে গণসমাবেশটি শুরু হয়।