জুরাছড়ির কিশোরী ধর্ষণকারীরা জনগণের হাতে আটক ও পুলিশের নিকট হস্তান্তরিত

0
557

হিল ভয়েস, ২৮ ডিসেম্বর ২০২৩, রাঙ্গামাটি: রাঙ্গামাটির বালুখালীতে দুই কিশোরী ধর্ষণে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা অবশেষে জুরাছড়ি ও বরকল উপজেলা সীমান্তবর্তী এলাকায় স্থানীয় জনগণের হাতে আটক হয়েছে বলে জানা গেছে। এর পরপরই এলাকাবাসী জুরাছড়ি থানার পুলিশকে খবর দিয়ে দুই ধর্ষণকারীকে পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে।

আটককৃত দুই ধর্ষণকারী হল- রুবেল চাকমা (২৬), পীং-অরুন চাকমা, সাং- ৫নং ওয়ার্ড, ২নং বনযোগীছড়া ইউনিয়ন ও রাসেল চাকমা (৩০), পীং- অক্ষয় চাকমা, সাং- ৪নং ওয়ার্ড, ২নং বনযোগীছড়া ইউনিয়ন, জুরাছড়ি উপজেলা।

গতকাল (২৭ ডিসেম্বর) সকাল আনুমানিক ১০টায় জুরাছড়ি ও বরকল সীমান্তবর্তী আইমাছড়া ইউনিয়নের গোয়হাট ছড়া এলাকা থেকে সাধারণ জনতা এই দুই ধর্ষককে আটক করে। এরপর তারা আটককৃতদের জুরাছড়ি ইউনিয়নের থাচিপাড়া গ্রামের মুরুব্বিদের নিকট হস্তান্তর করে। ঐ দিনই থাচিপাড়া এলাকাবাসী জুরাছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান এর সহযোগিতায় রাত প্রায় ১০টার দিকে জুরাছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নিকট সোপর্দ করে।

আজ জুরাছড়ি থানা পুলিশ দুই অভিযুক্তকে রাঙ্গামাটি সদর থানায় নিয়ে যাবে বলে খবর পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য, ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে গত ২৬ ডিসেম্বর ২০২৩ রাঙ্গামাটি কতোয়ালী থানায় ৯(১)/৩০ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩ এর আওতায় উক্ত দুই আসামী সহ অজ্ঞাতনামা আরও দুইজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ডিসেম্বর, জুরাছড়ি উপজেলা থেকে রাঙ্গামাটি সদর উপজেলাধীন বালুখালী ইউনিয়নের অন্তর্গত বসন্ত পাংখোয়া পাড়ায় খ্রীস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উৎসব অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অন্যদের মত ভুক্তভোগী দুই কিশোরীও অনুষ্ঠানটি দেখতে যায়।

অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে আনুমানিক ২-৩ ঘটিকার সময় ভুক্তভোগী দুই কিশোরী গাড়ি খুঁজতে বাইরে আসে। তখন আগে থেকে বাইরে থাকা অভিযুক্ত রুবেল চাকমা ও রাসেল চাকমা সহ আরো ২ জন দুই কিশোরীকে তাদের সাথে যেতে বলে। কিশোরীরা তাদের সাথে যেতে অপারগতা জানালেও ঐ ৪ জন যুবক দুই কিশোরীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে বসন্ত পাংখোয়া পাড়ার অদূরে একটি জুমঘরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে বলে জানা যায়।

জানা গেছে, ধর্ষণকারীরা আওয়ামী যুবলীগ রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত।