খাগড়াছড়িতে সেটেলার বাঙালি কম্পিউটার প্রশিক্ষক কতৃর্ক এক ত্রিপুরা ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা

0
928
ছবি : ধর্ষণ চেষ্টাকারী মো. কাউসার হোসেন

হিল ভয়েস, ১ নভেম্বর ২০২৩, খাগড়াছড়ি: খাগড়াছড়ি জেলা সদরস্থ একটি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে মো. কাউসার হোসেন (৩০) নামে একজন সেটেলার বাঙালি কম্পিউটার প্রশিক্ষক কর্তৃক এক কলেজ পড়ুয়া ত্রিপুরা সম্প্রদায়ের ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল মঙ্গরবার (৩১ অক্টোবর) খাগড়াছড়ি সদরের শান্তিনগরস্থ বীর মুক্তিযোদ্ধা শামছুল হক আইসিটি পয়েন্ট নামের কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের কক্ষে এ ঘটনা সংঘটিত হয় বলে জানা যায়। ধর্ষণের চেষ্টাকারী মো. কাউসার কোচিং সেন্টারের পরিচালক মোঃ রিয়াজ উদ্দীনের সম্পর্কে শ্যালক বলে জানা যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ছাত্রীটি প্রতিদিনের ন্যায় গতকালও সকাল ৮ ঘটিকার সময় কম্পিউটার প্রশিক্ষণের জন্য আইসিটি সেন্টারে যায়। তখন ধর্ষণ চেষ্টাকারী মোঃ কাউসার ভুক্তভোগী ঐ ছাত্রীকে সকাল ৭টার সময় হতে অপেক্ষা করে আছে বলে হাত ধরার চেষ্টা করে। এক পর্যাযে মো. কাউসার অতর্কিতভাবে পেছন দিক থেকে জোরপূর্বক জড়িয়ে ধরে। এতে ওই ছাত্রী চিৎকার করলে পাশের রুমে থাকা প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মো. রিয়াজ উদ্দিন এগিয়ে যান এবং ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন এবং ভুক্তভোগী নারীকে নানা ভাবে চাপ প্রয়োগ করা হয়। ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্য বিনামূল্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয় বলে জানা যায়।
এক পর্যায়ে ভুক্তভোগী ছাত্রী ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরাম (টিএসএফ) নেতৃবৃন্দকে বিষয়টি জানালে টিএসএফ এর নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ভুক্তভোগী নারী এবং ধর্ষণ চেষ্টাকারী মোঃ কাউসারকে খাগড়াপুর ত্রিপুরা স্টুডেন্টস ফোরামের অফিসে নিয়ে যায়।

সেখানে ভুক্তভোগী ছাত্রী এবং পরিবারের পক্ষ থেকে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে কিনা জানতে চাওয়া হলে ভুক্তভোগী পরিবার তাদের আর্থিক দূরাবস্থার কথা জানায়।

পরবর্তীতে ধর্ষণ চেষ্টাকারী মোঃ কাউসারকে উক্ত আইসিটি কোচিং সেন্টার থেকে বহিঃষ্কার করা হবে বলে জানায় আইসিটি কোচিং সেন্টারের প্রদান মোঃ রিয়াজ উদ্দীন। উক্ত কোচিং সেন্টার পরিচালনা করেন মোঃ রিয়াজ উদ্দীন এবং একই সেন্টারে পাশের রুমে ধর্ষণের চেষ্টাকারী মোঃ কাউসার কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন।