কোভিড-১৯-এর কারণে এবারের আদিবাসী দিবসের অধিকাংশ কর্মসূচি হবে অনলাইনে

0
2896
ছবি ডিজাইন: প্রমাণ চাকমা

হিল ভয়েস, ০১ আগস্ট ২০২০, ঢাকা:  আগামী ৯ আগস্ট আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস। বরাবরের মতো আদিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশের বিভিন্ন সংগঠন জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে এ বছর নানা কর্মসূচি হাত নিতে শুরু করেছে। তবে বিশ্বব্যাপী চলমান কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে অধিকাংশ কর্মসূচি অনলাইন ভিত্তিক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তবে সীমিত আকারে সমাবেশ, স্মারকলিপি প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া পোস্টার, স্যুভেনিয়র, ক্রোড়পত্র, লিফলেট ইত্যাদিও প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, ১৯৯৪ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে এক রিজুলেশনের মাধ্যমে ৯ই আগষ্টকে আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। জাতিসংঘের ‘বৈষম্য প্রতিরোধ ও সংখ্যালঘুদের সুরক্ষা বিষয়ক সাব-কমিশন’ অধীনে প্রতিষ্ঠিত ‘আদিবাসী জনগোষ্ঠী বিষয়ক ওয়ার্কিং কমিটি’র প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৮২ সালের ৯ আগস্ট, যা ছিল আদিবাসী বিষয়ে জাতিসংঘের প্রথম আনুষ্ঠানিক সভা। সেই দিনকে স্মরণে রেখে ৯ আগস্টকে বিশ্বের দেশে দেশে আদিবাসী জাতিগোষ্ঠীর অধিকার সুরক্ষা ও প্রসারের লক্ষ্যে জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।

জাতিসংঘ এ বছর ২০২০ সালের আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয় হিসেবে “COVID-19 and Indigenous Peoples’ Resilience” ঘোষণা করেছে। জাতিসংঘের প্রতিপাদ্য বিষয়ের সাথে সঙ্গতি রেখে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম এ বছরের প্রতিপাদ্য বিষয় হিসেবে “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” ঘোষণা করেছে।

জাতিসংঘের এই প্রতিপাদ্য বিষয় সম্পর্কে বলা হয়েছে যে, শীর্ষস্থানীয় গবেষণা সংস্থার গবেষণায় পরিবেশগত ক্ষতি ও মহামারীর মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে বলে উঠে এসেছে। পরিবেশগত ক্ষতির কারণে অনেক বিশেষজ্ঞ কোভিড-১৯ না হওয়ার আগে মহামারীর আশঙ্কা করছিলেন। তাই মাহমারী সংক্রমণ রোধে বর্তমানে আদিবাসী জনগোষ্ঠী ও তাদের সনাতনি জ্ঞানব্যবস্থা রক্ষা করা খুবই জরুরী। বিশ্বের ৮০% জীববৈচিত্র্য ভান্ডার আদিবাসী অধ্যুষিত ভূখন্ডগুলোতে অবস্থিত। প্রকৃতির সাথে ভারসাম্যপূর্ণ সম্পর্ক ও ভবিষ্যত মহামারীর ঝুঁকি কমাতে আদিবাসীদের জ্ঞানব্যবস্থা পথ প্রদর্শন করতে পারে। আদিবাসীরা এই মহামারী মোকাবেলায় তাদের নিজস্ব সমাধানের পথ খুঁজছে। তারা তাদের প্রথাগত জ্ঞানব্যবস্থা ও পদ্ধতিকে ব্যবহার করে স্বেচ্ছামূলক সঙ্গনিরোধ (আইসোলেশন), তাদের এলাকাকে বন্ধকরণ তথা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে।

বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম ঘোষিত “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” প্রতিপাদ্য বিষয়ের আলোকে আদিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, এসোসিয়েশন ফর ল্যান্ড রিফর্ম এন্ড ডেভেলাপমেন্ট (এএলআরডি), উত্তরবঙ্গের জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, বৃহত্তর ময়মনসিংহ অঞ্চলের জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন সংস্থা, বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের পাত্র সম্প্রদায় কল্যাণ পরিষদ (পাসকোপ), সাতক্ষিরা জেলার সুন্দরবন আদিবাসী মুন্ডা সংস্থা (সামস), কক্সবাজার শাখার আদিবাসী ফোরাম, জনউদ্যোগ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস) ও বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কসহ বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। সেসব কর্মসূচির মধ্যে অন্যতম হলো-

  • ৫ আগস্ট কাপেং ফাউন্ডেশন “দ্রুত চাহিদা নিরূপন প্রতিবেদন: বাংলাদেশের আদিবাসী ও ট্রাইবাল জাতিগোষ্ঠীর উপর কোভিড-১৯-এর প্রভাব” শীর্ষক অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ৬ আগস্ট বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম অনলাইন সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করবে।
  • ৭ আগস্ট অস্ট্রেলিয়া আদিবাসী স্কলার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আসাব) ”কোভিড-১৯ এন্ড এন্ডিজিনাস পিপলস রেসাইলিয়েন্স” শীর্ষক অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ৮ আগস্ট এএলআরডি জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর সহউদ্যোগে অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ৯ আগস্ট বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম দিনব্যাপী কর্মসূচি আয়োজন করবে। তার মধ্যে অনলাইন আলোচনা, বিভিন্ন বরেণ্য ব্যক্তির শুভেচ্ছা বার্তা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, পোস্টার, ‘সংহতি’ সংকলন ও জাতীয় দৈনিকে ’ক্রোড়পত্র’ প্রকাশ ইত্যাদি রয়েছে। ফোরামের অনলাইন আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে বিকাল ৫:০০ ঘটিকায়।
  • ৯ আগস্ট জাতীয় আদিবাসী পরিষদ রাজশাহী, নওগাঁ ও ঠাকুরগাঁতে “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” শীর্ষক আলোচনা সভা ও সমাবেশ আয়োজন করবে।
  • ৯ আগস্ট জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন সংস্থা মধুপুরের আদিবাসীদের ভূমি অধিকারসহ বিভিন্ন দাবিতে টাঙ্গাইল জেলার জেলা প্রশাসকের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করবে।
  • ৯ আগস্ট পাত্র সম্প্রদায় কল্যাণ পরিষদ (পাসকোপ) সিলেটে “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” শীর্ষক আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ৯ আগস্ট সুন্দরবন আদিবাসী মুন্ডা সংস্থা (সামস) সাতক্ষিরার শ্যামনগর উপজেলায় “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” শীর্ষক আলোচনা সভা আয়োজন এবং শ্যামনগর উপজেলার নির্বাহী অফিসারের বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করবে।
  • ৯ আগস্ট বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের কক্সবাজার শাখা কক্সবাজার জেলায় “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” শীর্ষক আলোচনা সভা আয়োজন এবং কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের বরাবরে আদিবাসীদের বিভিন্ন অধিকারের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করবে।
  • ১০ আগস্ট ঝিমিত ঝিমিত গ্রুপের আদিবাসী কবিতা আবৃত্তি ও গান পরিবেশন করবে। তাদের পেইজ থেকে লাইভ সন্ধ্যা ৫:০০ টা থেকে রাত ৯:০০ টা পর্যন্ত।
  • ১২ আগস্ট বিকাল ৫:০০ টা থেকে রাত ৯:০০ টা পর্যন্ত জনউদ্যোগ ঢাকা থেকে “কোভিড-১৯ মহামারীতে আদিবাসীদের জীবনজীবিকার সংগ্রাম” শীর্ষক অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ১৩ আগস্ট বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস) ও বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক যৌথভাবে “করোনা মহামারী কালে আদিবাসী নারীদের জীবন ও জীবিকা” শীর্ষক অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।
  • ১৭ আগস্ট বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ (বিএনপিএস) নিজস্ব অফিসে “নারীদের প্রজনন স্বাস্থ্য” বিষয়ক এক অনলাইন আলোচনা সভা আয়োজন করবে।