চবিতে জুম্ম ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের চেষ্টা, পিসিপি ও এইচডব্লিউএফের নিন্দা

0
863
ছবি: যৌন নিপীড়নের চেষ্টাকারী

হিল ভয়েস, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) এর ২নং গেইট এলাকায় এক জুম্ম ছাত্রীকে এক বখাটে কর্তৃক যৌন নিপীড়নের চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর সাথে আলাপে জানা যায়, তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে তার ফাইনাল পরীক্ষার শুরু হওযার কথা রয়েছে। তিনি শামসুন নাহার হলের আবাসিক শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থীদের দাবি না মেনে হল খোলা না রেখে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিভাগের ফাইনাল পরীক্ষা নেয়ার চূড়ান্ত সিধান্তের কারণে গত জানুযারি মাস থেকে তিনি ২নং গেইট সংলগ্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে অবস্থান করেন।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ সন্ধ্যা ৭:০০ টার দিকে ঐ শিক্ষার্থী বাজার থেকে বাসায় ফিরছিলেন। বাজার থেকে ভাড়া নেয়া বাসাটির দুরত্ব দুই থেকে দিন গজের মত। মোবাইলে রির্চাজ নাই বলে রাস্তার পাশে রিচার্জের দোকান থেকে রিচার্জ করার জন্য দোকানটির দিকে এগোলে অচেনা এক লোক একটা সাইকেল নিয়ে তার সামনে আসে। তার কানের পাশে ফিসফিস করে চিটাগংয়ের আঞ্চলিক ভাষায় বলে, ‘আঁর লগে গরিত ফারিবি নি?’ যার সোজা বাংলা অর্থ হল, ‘আমার সাথে সেক্স করতে পারবা?’

এসময় তিনি কিছু না বলে দোকানে গিয়ে রির্চাজ করে ফেরত এলে দেখে একিই লোক তার বাসায় নিচে দাঁড়িয়ে আছে। তখন মেয়েটি সাহস নিয়ে মোবাইলের লাইট অন করে প্রশ্ন করে, ‘একটু আগে আমাকে কী বললে? আঁর লগে গরিত ফারিবি নি? দাড়াও একটা ছবি তুলে নিই। রাস্তাঘাটে মেয়ে দেখলে যা খুশি তা বলবেন?’

সেসময় বখাটে ছেলেটা ভদ্র বেশ নিয়ে বলে, ‘আপনি কে? কি যা তা বলছেন? আমি কী বলেছি! আমি কিছুই বলি নাই! আপনি চলে যান।’

একথা শুনে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী রেগে গিয়ে চিৎকার করে বলেন, ‘মানুষ চিনেন? আমাকে বোকা পাইছেন? আমাদের যা খুশি তা বলবেন! এতোটাই সাদাসিধে মনে হয়?’ এরপর লোকজন জড়ো হাওয়ার আগে ছেলেটি সাইকেল নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।
এদিকে জুম্ম ছাত্রীকে যৌন হয়রানির চেষ্টার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) এবং চবি’র সাধারণ জুম্ম শিক্ষার্থী পরিবারের পক্ষ থেকে প্রক্টরের নিকট ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছে।

পিসিপি’র চবি শাখার তথ্য ও প্রচার সম্পাদক ম্যাকলিন চাকমা স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, আদিবাসী ছাত্রীরা বিভিন্ন প্রয়োজনে, টিউশন কিংবা বিভিন্ন কারণে বাসা থেকে বের হলে বাজারের রাস্তা অতিক্রম করে আসা-যাওয়ার পথে নানা ধরণের ইভটিজিং, শরীরে স্পর্শ করা, আপত্তিকর কথাবার্তা বলা ইত্যাদি যৌন হয়রানিসহ অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হন। এ ঘটনাসমূহের প্রতিকার জন্য বিভিন্ন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে মৌখিক কিংবা লিখিতভাবে অভিযোগ দাখিল করলেও প্রশাসন কোন কার্যকর পদক্ষেপ নেইনি। বরং এলাকাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের বলে বারবার দায় এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, হল খোলা রেখে ফাইনাল পরীক্ষা নেয়ার মতন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অদূরদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে ছাত্রীটিকে ভুক্তভোগী হতে হল। এর দায় বিশ্ববিদ্যালয় এড়াতে পারে না। তাই অনতিবিলম্বে ক্যাম্পাসের আশেপাশে অবস্থানরত সকল ছাত্রীদের নিরাপত্তা জোরদার করা ও যৌন হয়রানির চেষ্টাকারী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বিশ^বিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষকে আহবান জানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের চেষ্টার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক শান্তি দেবী তঞ্চঙ্গ্যা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসের সন্নিকটে জুম্ম শির্ক্ষাথীকে যৌন নিপীড়ন করার চেষ্টার ঘটনাকে বিশ্ববিদ্যালয়কে সমাধান দিতে হবে। তিনি অবিলম্বে নিপীড়নকারীর বিরুদ্ধে দ্রুত শাস্তিমূলক ব্যবস্থাসহ গ্রেফতারের দাবি জানান।

জুম্ম শির্ক্ষাথীকে যৌন নিপীড়নের চেষ্টার ঘটনায় আজ ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বেলা ১১:০০ টায় সাধারণ শির্ক্ষাথীরা প্রক্টরের সাথে দেখা করেন এবং ক্যাম্পাসের ভিতরে ও বাইরে আদিবাসী নারী শির্ক্ষাথীদের উপর যৌন নিপীড়নের ঘটনায় নিরাপত্তার দাবি জানিয়ে সমস্যা সমাধানের জন্য ১. অতি দ্রুত ২নং গেইট বাজার এবং ভবনগুলোর মাঝখানে লাইটিংয়ের ব্যবস্থা করা, ২. উত্যক্তকারীদের সনাক্তকরণের জন্য ভবনগুলোর সামনে প্রয়োজনে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার ব্যবস্থা করতে হবে এবং ৩. যৌন নিপীড়ন বিরোধী বিশেষ সেল গঠন করার দাবি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here